ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং | ৫ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

"শবনম ফারিয়া, একজন মানবিক তারার কথা "

প্রকাশিত: ১০ অগাস্ট ২০২১, সকাল ৮ঃ৪৪

 

আমাদের দেশের মিডিয়া জগতে অতীতে এবং বর্তমানে অনেক গুণী ও মেধাবী শিল্পী, অভিনেতা বা অভিনেত্রীর পদচারণা লক্ষণীয়। অনেকেই নিজের যোগ্যতা দিয়ে দেশের জন্য সুনাম অর্জন করে নিয়ে এসেছেন আন্তর্জাতিক মিডিয়া প্রাঙ্গণ থেকে এবং দিন দিন আমাদের সাংস্কৃতিক ভিত্তিকে করে চলেছেন আরো শক্ত ও মজবুত।

 

মিডিয়া জগতের তারকার  বর্ণীল শোভায় থাকার পরেও অনেকের মাঝেই ইচ্ছা থাকে সরাসরি দেশ ও মানুষের জন্য কিছু করার, তাদের পাশে থাকার কিন্তু ব্যাস্ততা বা সময়ের অভাবে আর কিছু করা হয়ে উঠে না তবে এর মাঝেও কেউ থাকেন যারা সকল ব্যাস্ততা উপেক্ষা করে চেষ্টা করে চলেছেন মানুষের পাশে থাকার।

 

আজকে তেমনি এক তারকার গল্প শুনবো আমরা, বাংলা নাটকে ও ছায়াছবিতে যার অবদান অতুলনীয় এবং প্রশংসনীয়।

 

(শবনম ফারিয়া তৃপ্তি)  Sabnam Faria ,  দেশীয় তারকাদের মাঝে নামকরা এই অভিনেত্রীকে আমরা সকলেই চিনি তার অভিনয়ের মাধ্যমে, কিন্তু আজকে আমরা তাকে উপস্থাপন করবো সম্পূর্ণ নতুন ভাবে, যা  হয়তো আমাদের অনেকেরই অজানা।

 

নিজের ফ্যান ফলোয়ার কে না পছন্দ করে?! প্রতিদিন খোজ খবর নেয়া, কখন কি করলেন, কি ভাবলেন, কি খেলেন, কবে শুটিং আছে, নতুন কি নাটক বা সিনেমা আসছে মূলত এসব নিয়েই যে কোন তারকার ভক্তদের ব্যাস্ত সময় কাটে এবং তারকা নিজেও এসবের মাঝে থাকেন, কিন্তু শবনম ফারিয়া আমাদের এবার নতুন করে ভাবতে শিখিয়েছেন, তিনি তার ভক্তদের মাধ্যমে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন শত শত মানুষের জন্য।

 

না এই নিয়ে তার কোন ভিডিও ভাইরাল হয় নি, কিংবা হয়নি কোন লোক জানাজানি,  তিনি এই মানব সেবার কাজটি করে যাচ্ছেন সম্পূর্ণ নীরবে, আর উপকার পাচ্ছেন দেশের বিভিন্ন এলাকার শত শত মানুষ। তিনি দু একবার ত্রান দেয়া বা গুটি কয়েক মানুষকে এক বেলা খাবার দিয়ে পত্রিকার পাতায় নাম লেখাননি, তিনি যা করেছেন এর জন্য দরকার হয় সাহসী মানসিকতা।

 

শবনম ফারিয়া তার ভক্তদের জন্য একটি ফেসবুক পেজ পরিচালনা করে থাকেন যার ফলোয়ার সংখ্যা ১৭ লক্ষ্য  (এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত)।

তিনি এই বিশাল ভক্তদের কাজে লাগিয়েছেন মানব সেবায়। কোভিডের শুরু থেকেই সারা দেশে যখন কোন মুমূর্ষু ব্যাক্তি যার সাহায্য পাওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম কিন্তু জরুরী ভাবে  রক্তের প্রয়োজন হয়েছে তাদের জন্য তিনি তার ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি রক্তের জন্য আবেদন করেছেন, একবারের জন্যেও ভাবেননি এমন পোষ্টের কারনে তার ভক্তদের মাঝে কিরুপ প্রতিক্রিয়া হবে, কারন তিনি তার ভক্তদের উপর আস্থা রেখেছিলেন এবং তার ভক্তদের থেকে পাওয়া সাড়ায় তিনি নিজেও অবাক হয়েছেন। তার প্রতিটা রক্তের জন্য করা আবেদনগুলো মুহূর্তের মাঝেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া পেয়ে থাকে এবং কয়েক ঘন্টার মাঝেই রোগীর রক্তের চাহিদা পূরণ করা হয়।

 

একজন তারার জগতের মানুষ হয়েও কত সুন্দর ও সাবলীল ভাবে নিজের ভক্ত সমাজ কাজে লাগিয়ে দেশের ও জনগনের সেবা করা যায় তা শবনম ফারিয়া আমাদের শিখিয়ে দিয়েছেন।

 

প্রজেক্ট বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন থেকে তাকে জানাই শ্রদ্ধা ও আন্তরিক অভিনন্দন।

আমাদের আগামীর পথ চলায় তিনি আমাদের পাশে থাকবেন বলে আশা করছি এবং তার দেখানো পথে দেশের অন্যান্য শিল্পীরাও মানুষের সেবায় এগিয়ে আসবেন এই কামনা রইলো।

 

শুভেচ্ছায়ঃ প্রজেক্ট বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন

লেখাঃ ডাঃ এম মাহিদুল ইসলাম জিহাদ, প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান